Header Ads

দশ লক্ষ প্রচেষ্টা প্রকল্পে আবেদন হল??

প্রচেষ্টা প্রকল্পের  আবেদনপত্র পূরণ শুরু হয় শুক্রবার থেকে দরখাস্ত জমা দেয়ার শেষ দিন এবং লোকজনের পরিস্থিতিতে 10 লক্ষ আবেদনের রাজ্যে প্রকল্পের হাজার টাকা করে ভাতা পাবেন দরখাস্ত ঝাড়াই-বাছাই এরপরে সরকারি-বেসরকারি উপভোক্তা হাতে তুলে দেবে এবং সরকারি কর্তব্য চড়কগাছ হয়েছে রাজ্যের 



স্নেহের পরশ প্রকল্পে  আটকাতে হাজার  লক্ষ আবেদন করেছিল হাজার টাকা পেতে কিন্তু প্রায় সাড়ে চার হাজার লোক আবেদনের রাজ্যে পরিযায়ী শমিক দের জন্য হাত খরচের টাকা দাবি করেছেন রাজ্য সরকার এবং আবেদন বাতিল করে দেয়া হয়েছিল তখন সরকার থেকে

আজ লোকের  শমিক ব্যাংকের দেখে  হাজার হাজার টাকা নবান্ন থেকে খরচ করেছিলাম 50 কোটি টাকা রাজ্য সরকার থেকে

প্রচেষ্টা প্রকল্পের সরকারি টাকা পাওয়ার জন্য আবেদন করেছিল সরাসরি বিডিও অফিস থেকে ভিড় রক্তে জমাতে অনলাইনে আবেদন শুরু করা হলো এবং অর্থ দপ্তর থেকে প্রকল্পের নির্দেশিকা জানা গিয়েছে যে সরকারি পেনশন সুবিধা পেতে প্রকল্পে টাকা মিলবে না এবং পরিবারের একজন ছাড়া এটা সুবিধা পাবেন বাড়ির একমাত্র রোজগার হলে তবে টাকা মিলবে এবং ভোটার কার্ড আধার কার্ড ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নম্বর সহ আবেদন করতে হবে ও অর্থ দপ্তরের থেকে জানাচ্ছে যে একটি ভোটার কার্ডের নম্বর উল্লেখ করে একটি আবেদন জমা পড়েছে ঠিকানা সাতাশটি আবেদন হয়েছে ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট উল্লেখযোগ্য কয়েকশো আবেদন এসেছে 16 বছরের কিশোরের আবেদনের দেখা গিয়েছে প্রচেষ্টা প্রকল্পে

আবেদনকারী 60% পার্সেন্ট সরকারি সুবিধা পেয়ে থাকেন ফলে আবেদন বাতিল করা হবে সরকারি সুবিধা পান তেমনই আবেদনকারী হাজার টাকা দেয়া হবে এই হাতে আরো 40 কোটি টাকা লাগতে পারে বলেছে অর্থমন্ত্রী

প্রচেষ্টা প্রকল্পে আবেদনকারী অভিযোগ করেছে যে অনলাইনে ফরম পূরণ করতে পারেননি কারণ সারাদিন কম্পিউটার বা মোবাইলে চেষ্টা চালিয়েছে প্রকল্পে খোলা যায়নি 23 ঘন্টা আবেদন জমা পড়ে ফলে প্রচেষ্টা প্রকল্পের ফর্ম বন্ধ করে দেয়া হয় ছুটির দিনেও খোলা ছিল না জানা গিয়েছে যে কর্তব্য তারিখ ঘন্টা লক্ষাধিক আবেদন জমা পড়ে গিয়েছিল একটি মাঝেমধ্যেই ভুগিয়েছেন এবং আবেদন পাড়ার অভিযোগ মানতে চাননি ও এসএমএস আসছিল না কোন ফোনে প্রকল্পের ফর্ম
Powered by Blogger.