Header Ads

Nabanna Scholarship / UTTARKNYA Scholarship বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের খবর ( নবান্ন স্কলারশিপ ) 2020-21 আবেদনের পদ্ধতি যোগ্যতা এবং সমস্ত তথ্য জেনে নিন

দুস্থ ও মেধাবী ছাত্র ছাত্রী দের কথা ভেবে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী, ত্রাণ তহবিল থেকে  প্রতিবছর ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্কলারশীপ প্রদান করে থাকে। মুখ্যমন্ত্রীর এই ত্রাণ তহবিলের এই স্কলারশিপ নবান্ন স্কলারশিপ (Nabanna Scholarship) নামে পরিচিত। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির জন্য এই স্কলারশিপটির নাম উত্তরকন্যা স্কলারশিপ। এই বছর যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক অথবা কলেজের কোন পরীক্ষায় পাস করে পরবর্তী ক্লাসে ভর্তি হয়েছে, তারা এই মুখ্যমন্ত্রীর নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারে। 


যোগ্য ছাত্রছাত্রীরা নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারে। এই নবান্ন স্কলারশিপে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতিবছর 10,000 থেকে 20,000 টাকা প্রদান করা হয় । স্কলারশিপ এর পরিমান নির্ভর করে তাদের বর্তমান কোর্সের খরচের উপর।পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তহবিল স্কলারশিপ বা নবান্ন স্কলারশিপ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিচে আলোচনা করা হলো।

নবান্নের ঠিকানা:- 

        নবান্ন, 14 ম তলা, 325 শরৎ চট্টোপাধ্যায় রোড, শিবপুর, হাওড়া -711102

যোগাযোগ:-

West Bengal Government (WB)
Nabanna, 14th Floor,
325, Sarat Chatterjee Road,
Shibpur, Howrah – 711102.
Tel- 033 2214 5555 / 2214 3101
Fax – 033 2214 3528
Email- cm@wb.gov.in

Website – www.wbcmo.gov.in


নবান্ন স্কলারশিপের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা :

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের একজন স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে ।
  • কেবলমাত্র পশ্চিমবঙ্গের কোন বোর্ড, কাউন্সিল অথবা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে, পশ্চিমবঙ্গের কোন স্কুল, কলেজ অথবা ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়েছে তারাই স্কলারশিপের জন্য যোগ্য।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী মাধ্যমিকে 65% নাম্বার নিয়ে উচ্চমাধ্যমিক কোর্সে ভর্তি হয়েছে অথবা উচ্চ মাধ্যমিকে 60% নাম্বার নিয়ে কলেজে ভর্তি হয়েছে অথবা কলেজে 55% নাম্বার নিয়ে ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়েছে, তারাই স্কলারশিপটির জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • যারা স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট-কাম মিনস্ স্কলারশিপটির জন্য যোগ্য তারা, নবান্ন স্কলারশিপের (Nabanna Scholarship) জন্য আবেদন করতে পারবে না।
  • আবেদনকারীর পরিবারের বাৎসরিক আয় 60,000 টাকার কম হতে হবে তবেই সে পশ্চিমবঙ্গ মুখ্যমন্ত্রী তহবিল নবান্ন স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবে।
  • যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী আগে থেকেই অন্য কোনো সরকারি অথবা বেসরকারি সংস্থার কাছ থেকে স্কলারশিপ পাচ্ছে, তারা এই স্কলারশিপের জন্য যোগ্য নয়।

নবান্ন স্কলারশিপের আবেদন পদ্ধতি :

পশ্চিমবঙ্গ মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল নবান্ন স্কলারশিপের আবেদন পদ্ধতি অফলাইন। এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন দুই ভাবে করা যায় । সাদা কাগজে নিজের হাতে লেখা একটি আবেদন পত্র তৈরি করে স্কলারশিপের জন্য আবেদন করা যেতে পারে অথবা আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে স্কলারশিপের আবেদন পত্রটি ডাউনলোড করে নিয়েও আবেদন করা যেতে পারে। নবান্ন স্কলারশিপ আবেদন এর জন্য নিচের পদ্ধতি গুলো নিম্নরূপ ।

নবান্ন স্কলারশিপের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য :

  • কেবলমাত্র আবেদনকারী নিজে অথবা অভিভাবক এই ফর্ম জমা দিতে পারেন।
  • ছাত্র-ছাত্রীরা এই পোষ্টের মাধ্যমেও পাঠাতে পারে কিন্তু সেক্ষেত্রে স্কলারশিপ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা কমে যাবে।
  • পশ্চিমবঙ্গ মুখ্যমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল নবান্ন স্কলারশিপে আবেদনের নির্দিষ্ট কোন শেষ তারিখ নেই।
  • ছাত্রছাত্রীরা তাদের বর্তমান কোর্সের যেকোনো সময় এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারে।তবে মোটামুটি ভাবে ডিসেম্বর মাসের মধ্যে জমা করা বাঞ্চনীয়।
  • নবান্ন স্কলারশিপে প্রাপ্ত টাকার অংক বিভিন্ন কোর্সের জন্য বিভিন্ন রকম।
  • নিজের আবেদন পত্রের স্ট্যাটাস জানার জন্য ছাত্রছাত্রীরা রিসিপ্ট কপি নিয়ে নবান্ন অথবা উত্তরকন্যা তে যোগাযোগ করতে পারে।
  • এই প্রকল্পের সরকারি ওয়েবসাইট এর জন্য এখানে ক্লিক করুন।

নবান্ন স্কলারশিপের প্রার্থী বাছাই পদ্ধতি :

মেধা এবং পারিবারিক বাৎসরিক আয়ের উপর ভিত্তি করে এই নবান্ন স্কলারশিপ এর জন্য প্রার্থী বাছাই করা হয়।
ছাত্র-ছাত্রী আবেদনপত্র জমা দেয়ার পর কর্তৃপক্ষ সেই আবেদনপত্র ভালো করে খুঁটিয়ে দেখে এবং তারপর নির্বাচিত তারপর ছাত্র বা ছাত্রী কে নবান্ন থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়।
নির্বাচিত ছাত্র -ছাত্রী রা তাদের প্রাপ্ত টাকা নিজের ব্যাঙ্ক একাউন্ট এ পায়ে যাবে।



নবান্ন বা উত্তরকন্যা স্কলারশিপ এর বিভিন্ন মডেল ফরমেট

Powered by Blogger.